একটি ওয়েবসাইট তৈরি করার সঠিক নিয়ম

একটি ওয়েবসাইট তৈরি করার সঠিক নিয়ম তুলে ধরা হল:- বর্তমানে অনলাইনে আয় করে জীবন ধারাকে আরও সহজ করা যায়। আনলাইনে আয়ের প্রধান সুবিধা হচ্ছে নিজের ইচ্ছে মত করা যায়। অনলাইনে আয়ের দুটি মাধ্যম। যেমন চাকুরি ও ব্যাবসা। তবে আমরা বাস্তব জীবনে চাকরি এবং ব্যবসা দুটোই করতে পারি। আর এখন প্রযুক্তি ব্যবহার করে সেটা অনলাইনের আওতায় আনা হয়েছে।

অনলাইনে ব্যবসায় করতে হলে একটি ওয়েবসাইটের প্রয়োজন হয়। আর একটি ওয়েবসাইট হচ্ছে একটি স্থায়ী ইনভেস্ট। যার দ্বারা আমরা উপার্জন করতে পারি। কিছু মানুষের ধারনা ওয়েবসাইট তৈরি করতে প্রোগ্রামার হতে হয় কিন্তু কিছু নিয়ম বা পন্থা জানা থাকলে একটি ওয়েবসাইট তৈরি করা যায় খুব সহজেই।

ওয়েবসাইট কী?
ওয়েবসাইট হচ্ছে প্রাতিষ্ঠানিক ও অ-প্রাতিষ্ঠানিক যেকোনো ব্যবসায়ের অনলাইন পরিচয়। স্কুল, কলেজ, হাসপাতালসহ বিভিন্ন সেবা প্রতিষ্ঠানের সেবা এবং পরিচিতি তুলে ধরা হয় ওয়েব সাইটে। বিভিন্ন বিপণি পণ্য কেনা-বেচার ক্ষেত্রে ওয়েবসাইটের মাধ্যমে করা হয়। যেকোনো ধরনের ব্যবসা প্রতিষ্ঠানের ওয়েবসাইট থাকলে সেবা গ্রহনকারী বা ক্রেতাদের বিশ্বাস অর্জন করা সহজ হয়।

ওয়েবসাইট তৈরির বিষয়
ওয়েবসাইট তৈরি করার পূর্বে ওয়েবসাইটটির ধরন নির্বাচন করতে হবে। আপনার ব্যবসায়ের ধরন কেমন তার উপর নির্ভর করে ওয়েবসাইটটি কোন বিষয়ের উপর হবে। একেকটি ওয়েবসাইট একটি বিষয়ের উপর করা হয়। আপনি যে ভাবেই ওয়েব সাইট তৈরী করেন না কেন আপনাকে একটি ওয়েব সাইট তৈরি করার সঠিক নিয়ম জানতে হবে।

প্রথমেই ডোমেইন নিবন্ধন
ডোমেন হচ্ছে আপনার ব্যবসার ওয়েবসাইটের নাম। এই নামটি অন্যন্য হতে হবে। এটিই আপনার ব্যবসায়ের প্রধান পরিচয় যার দ্বারা আপনার ব্যবসা সকলের কাছে পরিচিতি পাবে। সঠিক ডোমেন অনুসন্ধান ও নিবন্ধন করাই শ্রেয়। ডোমেন নিবন্ধন চুক্তি আপনি বার্ষিক বা দীর্ঘমেয়াদী পদ্ধতিতে করতে পারবেন। স্বনামধন্য কিছু রেজিস্টার প্রতিষ্ঠান থেকে নিবন্ধন করতে হয়।

ওয়েব হোস্টিং
ওয়েব হোস্টিং মুলত একটি সার্ভার। আপনার ওয়েবসাইটের এইচটিএমএল, পিএইচপি, ছবি এবং কন্টেন্ট গুলো যে  স্থানে রাখা হয় তাকে হোষ্টিং বলে। আপনার ওয়েবসাইট ভিজিটররা যেন যেকোনো সময় ওয়েবসাইটে ভিজিট করলে তা দেখতে পারে সে জন্য হোস্টিং করতে হয়। বিভিন্ন কোম্পানি ওয়েব হোস্টিং করে থাকে।

ওয়েবপেজ ডিজাইন
ওয়েবপেজ ডিজাইন হচ্ছে আপনার সম্পূর্ন ওয়েবসাইটটি দেখতে কি রকম হবে বা এর নকশায়ন করা। এটি আপনি আপনার ব্যবসায়ের ধরন অনুযায়ী করতে পারেন। আপনরা ওয়েবপেজটি ডিজাইন করতে চাইলে আপনি নিজে করতে পারেন বা আপনি কাউকে নিয়োগ দিতে পারেন।

প্রথমত ওয়েবসাইট ডিজাইন করার জন্য ওয়েবপেজগুলো এডোবি ফটোশপ সফটওয়্যারে করতে হয়। তারপর বিভিন্ন ভাষা ব্যবহার করা হয়। এই ভাষা গুলো হচ্ছে –

এইচটিএমএল
এইচটিএমএল এর পূর্ণরূপ হচ্ছে- হাইপার টেক্সট মার্কআপ ল্যাংগুয়েজ। এইচটিএমএল হলো ওয়েবপেজ গুলো এবং ওয়েব অ্যাপ্লিকেশনের মূল কাঠামো। যার মাধ্যমে  সমগ্র ওয়েব ব্রাউজারে ওয়েবপেজটিকে অর্থপূর্ণ করে তোলে। এটি ট্যাগ নিয়ে গঠিত যা একটি খোলা ট্যাগ এবং অন্য একটি বন্ধ ট্যাগ বলা হয়। ট্যাগগুলোকে দ্বিতীয় বন্ধনী দ্বারা আবদ্ধ করা হয়।

সিএসএস
সিএসএস এর পূর্ণরূপ হচ্ছে- ক্যাসকেডিং স্টাইল সীট। এটি এইচটিএমএল -কে আকর্ষণীয় করে তোলে। সিএসএস ছাড়া ওয়েবপেজ সাদা দেখতে হয়। সিএসএস এমন বিষয় যা পেজটিকে আদর্শভাবে উপস্থাপন করে।

স্ক্রিপ্টিং ভাষা
এইচটিএমএল এবং সিএসএস স্ক্রিপ্টিং ভাষা ছাড়া কিছু করতে পারে না কারণ তারা ইন্টারেক্টিভ হয় না। ব্যবহারকারীদের সাড়া দেবে এমন একটি গতিশীল ওয়েব পেজ তৈরির জন্য আপনাকে জাভাস্ক্রিপ্ট এবং jQuery ভাষাগুলি প্রয়োজন হবে। এছাড়াও সময়ের সাথে প্রয়োজন হতে পারে পিএইচপি, পাইথন এবং রুবির মত সার্ভার-পার্শ্ব ভাষা।

ডাটাবেস ম্যানেজমেন্ট
একটি ওয়েবসাইট ব্যবহারকারী ইনপুট ডেটা সংরক্ষণ, পরিচালনা এবং অ্যাক্সেস করতে চাইলে একটি বড় টেবিল ডেটাবেস প্রয়োজন হয়। MySQL, MongoDB এবং PostgreSQL মত ডেটাবেস ম্যানেজমেন্ট সিস্টেমটি দক্ষতার সাথে এই কাজটি করতে হয়।

এফটিপি
এফটিপি এর পূর্ণরূপ হচ্ছে- ফাইল ট্রান্সফার প্রোটোকল। এটি একটি ওয়েবসাইট এর উৎস ফাইল তার হোস্ট সার্ভারে আরো সহজে স্থানান্তর করতে ব্যবহৃত হয়। ওয়েব ভিত্তিক এবং কম্পিউটার সসফটওয়্যার ভিত্তিক এফটিপি ক্লায়েন্ট রয়েছে যা সার্ভার কম্পিউটারে নিজের ফাইল আপলোড করতে ব্যবহার করে।

বিনামূল্যে ওয়েবসাইট তৈরি
আপনি চাইলে বিনামূল্যে ওয়েবসাইট তৈরি করতে পারবেন। আপনি যদি এইচটিএমএল, সিএসএস বা পিএইচপি বেসিক না জানেন তবে এটি একটি বড় সমস্যা নয়। এই প্ল্যাটফর্মগুলি খুব বেশি স্বজ্ঞাত। শীর্ষ তিনটি বিনামূল্য প্ল্যাটফর্ম আছে যা আপনি আপনার পছন্দ ও প্রয়োজন অনুযায়ী ব্যবহার করতে পারেন। যেমন-  কিভাবে একটি নতুন প্রফেশনাল ইউটিউব চ্যানেল খুলবেন জানতে এখানে ক্লিক করুন।

ওয়ার্ডপ্রেস
বিভিন্ন পরিসংখ্যান অনুযায়ী জানা গিয়েছে যে, ওয়ার্ডপ্রেস সর্বোচ্চ সংখ্যক ব্লগ এবং ছোট থেকে মাঝারি আকারের ওয়েবসাইট গুলিতে ব্যবহার করা হয়েছে। অনেক শক্তিশালী বড় ওয়েবসাইট তার সরলতার জন্য ওয়ার্ডপ্রেস পছন্দ করে। তবে প্ল্যাটফর্মটির প্রবর্তকদের জন্য প্রাতিষ্ঠানিক এবং ওয়েব ডেভেলপারদের বিভিন্ন শ্রেণীর দ্বারা ব্যাপকভাবে বিকাশযোগ্য। এটি তাদের নিজস্ব সংগ্রহ স্থলের উপর বিনামূল্যে অনেক প্লাগইন এবং থিম রেখেছে। এটি এক্সটি এনএক্স সিএমএস পছন্দের, পাশাপাশি তৃতীয় পক্ষের সংস্থানের প্রচুর পরিমাণে উপলব্ধ করা হয়। ওয়েবসাইট তৈরি করার নিয়ম

জুমলা                                                                                                                                                                          এটা অনেকটা ওয়ার্ডপ্রেসের মত। এটি ব্যবহার করা খুবই সহজ, ইনস্টল করা সহজ এবং মডিউলগুলির সাহায্যে সহজেই প্রসারিত করা যায়। সেই সাথে ওয়ার্ডপ্রেসের প্লাগইন সমতুল্য। সুতরাং এটি নতুনদের জন্য দ্বিতীয় সেরা বিকল্প।  বাংদেশে সংস্কৃতির বিভিন্ন ভিডিও দেখতে এখানে ক্লিক করুন

ড্রুপাল
অনেক অভিজ্ঞ ওয়েব ডেভেলপাররা প্রত্যয় করেন যে ড্রুপালটি সবচেয়ে শক্তিশালী সিএমএস। এটি ব্যবহার করা সবচেয়ে কঠিন। কারন তার নমনীয়তা। এটি বিশ্বের দ্বিতীয় সর্বাধিক ব্যবহৃত সিএমএস ড্রপাল হলেও এটি নতুনদের মধ্যে প্রিয় নয়।ড্রুপাল ব্যবহার করে সফলভাবে একটি “সম্পূর্ণ” ওয়েবসাইট তৈরি করতে, আপনাকে কোডিংয়ের বুনিয়াদি শিখতে হবে। সিএমএসের চারপাশে আপনার পথ জানাতে বিগিনারদের জন্য চ্যালেঞ্জিং হয়ে পরে।

সুতরাং একটি সম্পূর্ন সঠিকভাবে ওয়েবসাইট তৈরি করার জন্য এই নিয়ম গুলো জানা জরুরী। ওয়েবসাইট তৈরির বেসিক কিছু তথ্য জানা থাকলে সহজেই ওয়েব সাইট তৈরি করা যায়।

অনলাইন আয়