চুল বাধার সহজ নিয়ম

চুল বাধার সহজ নিয়ম ৯টি 

মেয়েরা সব সময় নিজেকে পরিপাটি রাখতে পছন্দ করে। তার মধ্য চুল অন্যতম। চুলকে বিভিন্ন পদ্ধতিতে বাঁধতে পছন্দ করে। যে কোনো অনুষ্ঠানে চুলকে সুন্দর করে স্টাইল করে না বাঁধলে যেন নিজেকে পরিপাটি লাগে না। সুন্দর করে চুল বাঁধলে চেহারার সৌন্দর্য আরও বেড়ে যায়। অনুষ্ঠানের ধরন অনুযায়ী মেকআপ করা হয় সেই সাথে চুল স্টাইলটাও।

বর্তমান যুগের মেয়েরা সুন্দরভাবে চুল বাঁধার জন্য পার্লারে যেয়ে থাকে। আর এর জন্য অর্থ ব্যয় হয়। তবে এখন নিজেও বাঁধতে পাড়বেন যদি কিছু পদ্ধতি জানা থাকে। এতে করে অর্থ ব্যয় হবে না উলটো সঞ্চয় হবে।
প্রবাদে রয়েছে- “যে রাঁধে সে চুলও বাঁধে”।

চুলের ধরন অনুসারে চুল বাঁধা হয়। যেকোনো ডিজাইন সব রকম চুলে করা যায় না। যেমন- ছোট চুল, লম্বা চুল, বিভিন্ন স্টাইলে কাঁটা চুল, কোকড়া চুল ইত্যাদি। আবার অনুষ্ঠানের সময় অনুসারে চুল বাঁধতে হয়। দিনে একরকম, রাতে একরকম, আবার দূরে কোথাও ঘুরতে গেলে একরকম ইত্যাদি। [ কীভাবে একটি প্রফেশনাল ইউটিউব চ্যানেল খুলবেন দেখতে এখানে ক্লিক করুন  ]

চুল বাধার সহজ নিয়ম ৯টি নিচে উল্লেখ করা হল:-

১. শর্ট কার্ল হেয়ার
শর্ট কার্ল একদম ছোট বা বব কাট চুলে ভাল মানায়। প্রথমে কারলিং আয়রন মেশিন দিয়ে চুলে আগাড় কিছু অংশ কার্ল করে নিতে হবে। এতে করে চুলে একটা ওয়েভি ভাব চলে আসে। এরপর চুল এভাবে রাখতে পারেন অথবা ক্লিপ দিয়ে আটকে নিতে পারেন।

২. বুফোঁ হেয়ার
বুফোঁ হচ্ছে মাথার মাঝখানের কিছু চুল নিয়ে কার্লিং ক্লিপ দিয়ে হালকা উচু করে আটকে রাখা। এক্ষেত্রে চুল কার্ল করতে পারেন আবার না করলেও হবে।

৩. সাইড ব্রেড স্টাইল
এটা এক সাইডে ছোট্ট বিনুনি। যেকোনো এক সাইডে সিঁথি করে চুল আঁচড়িয়ে নিন। এবার বিপরীত দিকে একটা বিনুনি করে সেটা ক্লিপ দিয়ে আটকে দিন। আপনি চাইলে অনেকগুলো বিনুনি করে সেগুলো একসঙ্গে ক্লিপ দিয়ে আটকে নিতে পারেন। আরও স্টাইল করতে চাইলে বিনুনিতে কালারফুল বিডস লাগিয়ে নিতে পারেন।

চুল বাঁধার সহজ পদ্ধতি

৪. ফ্রন্ট ব্রেড স্টাইল
মাথার সব চুল ব্যাক কোম্ব করে নিতে হবে। এবার সামনে দিক থেকে ছোট-ছোট বিনুনি বেঁধে নিন। এবার বিনুনি গুলো পিছনদিকে নিয়ে ক্লিপ দিয়ে আটকে দিতে হবে। দু’ সাইডে কিছু চুল খোলা রাখলে দেখতে সুন্দর লাগে।

৫. বেড়া বিনুনির বান
এটি একটি স্টাইলিশ হেয়ার বান। প্রথমে চুল দু’ভাগে ভাগ করে নিতে হবে। চুলের দৈর্ঘ্য অনুসারে দুটো বিনুনি বেঁধে নিতে হবে। এবার ক্রসের মত করে ডান দিকের বিনুনি বাঁ দিকে এবং বাঁ দিকের বিনুনি ডান দিকের সাথে আটকে দিতে হবে। এভাবে পেঁচিয়ে পেঁচিয়ে বান এর মত করতে হবে। শেষে ক্লিপ দিয়ে আটকে নিতে হবে।

৬. লেসব্রেড আপডু স্টাইল
এটা দেখতে অনেকটা বেড়া বিনুনি বানের মতো। প্রথমে মাঝখানে সিঁথি করে চুল দু’ভাগ করে দু’দিকের চুলের ধার দিয়ে ঢিলেঢালা করে দুটো বিনুনি বাঁধতে হবে। শুধুমাত্র চুলের সাইড দিয়ে বিনুনি বাঁধতে হবে বাকি চুল ছাড়াই থাকবে। এখন একটা বিনুনি একটু উপরের দিকে তুলে ক্লিপ দিয়ে আটকে দিতে হবে। এটা এমনভাবে আটকাতে হবে যেন চুলের যে অংশ ছাড়া ছিল সেটা নীচের দিকে ঝুলে থাকবে। এবার অপর বিনুনিটাও একই রকম রাখতে হবে। দেখা যাবে দুটো বিনুনির নীচ দিয়ে চুল খুব সুন্দর ভাবে ফুলে উঠে বেরিয়ে থাকবে।

৭. রোপ ব্রেড বান স্টাইল
পাকানো দড়ির মতো দেকতে তাই এর নাম রোপ ব্রেড বান। প্রথমে চুল আঁচড়ে নিয়ে ব্যাক কোম্ব করে নিতে হবে। এখন মাথার মাঝখান থেকে অল্প কিছু চুল নিয়ে বিনুনি করে পেঁচিয়ে বেঁধে নিতে হবে। আবার কিছু চুল নিয়ে বিনুনি করে পেঁচিয়ে বেঁধে নিতে হবে। এভাবে ৩-৪ বার করতে হবে। এরপর প্রথম বিনুনি গুটিয়ে ছোট করে ক্লিপ দিয়ে আটকে দিতে হবে। পরপর সবগুলো বিনুনি এই রকম আটকাতে হবে। যেহেতু এই স্টাইলটা একটু মেসি টাইপ তাই ছোট চুল বের হলে ঠিক করতে হবে না।

৮. বান উইথ হেয়ার সাইড ব্রেড
এটি মূলত বিনুনি আর খোঁপার যুগলবন্দি গোছা। প্রথমে মাঝখানে সিঁথি করে চুল দু’ভাগে ভাগ করে আঁচরে নিতে হবে। এখন দু’দিক দিয়ে দুটো বিনুনি বাঁধতে হবে। যেখান থেকে সিঁথি শুরু হবে সেখান থেকে বিনুনি শুরু করতে হবে। এরপর মাথার ক্রাউন অঞ্চল একটু ফুলিয়ে একটা পনিটেল বাঁধতে হবে। পনিটেল বাঁধার সময় মাথার সমস্ত চুল নিতে হবে। তারপর পনিটেলের চারদিকে বিনুনি ঘুরিয়ে ঘুরিয়ে বাঁধতে হবে দেখতে যেন খোপা বা বানের মত হয়। একটা বিনুনি বেঁধে সেটা ঘুরিয়ে নিয়ে খোঁপা করে নিতে হবে। খোঁপায় বিনুনি আটকাতে পিন ব্যবহার করতে হবে।

৯. স্লিক ভিক্সেন
যাঁদের চুল সোজা তাঁদের এই স্টাইলটি করলে মানাবে। আর যদি চুল সোজা না হয় তাহলে চুল স্ট্রেটনিং করিয়ে নিতে হবে। প্রথমে যেকোনো এক সাইড থেকে চুল নিয়ে ঘুরিয়ে অন্যদিকে নিয়ে যেতে হবে। এমনভাবে করতে হবে নিচ দিয়ে যেন বাকি চুল বেরিয়ে না থাকে। যে অংশটি ঘুরিয়েছেন সেগুলোকে আলাদা আলাদা সেকশন তৈরি করে পিন দিয়ে আটকাতে হবে। এখন যে অংশটুকু বেরিয়ে থাকবে, সেটুকু চুল দিয়ে ছোট একটা নট বাঁধুন এবং বাকি চুল খোলা রেখে দিতে হবে। [ গ্রাম বাংলার বিভিন্ন ভিডিও দেখতে এখানে ক্লিক করুন ]

সুতরাং, চুলের ধরন এবং দৈর্ঘ্য বুঝে চুল বাঁধতে হবে। চুল বাঁধার আগে অবশ্যই চুল ভাল করে পরিষ্কার করে শুকিয়ে নিতে হবে। সময় কম থাকলে হেয়ার ড্রায়ার ব্যবহার করে চুল শুকাতে হবে। অনুষ্ঠানের ধরন এবং সময় মনে রেখে চুল স্টাইল করে বাঁধতে হবে। চুল বাঁধার সময় ভাল মানের হেয়ার স্প্রে ব্যবহার করতে হবে।

স্বাস্থ্য