মেথির উপকারিতা

মেথির উপকারিতা আমরা কম-বেশি জানি। মেথি দেখতে হলদাভাব খয়েরি রঙ্গের। মেথি বলতে অনেক সুস্বাদু খাবারের নাম আসে। আলুর দম থেকে শুরু করে তরকারি পর্যন্ত যে কোন খাবারে মেথি ব্যবহার করা যায়। পাঁচফোড়ন এর একটি প্রধান উপাদান হলো মেথি। মেথির শুধুমাত্র রান্নাঘরে মসলা (spice) বা কোনো খাবার মধ্যে সীমাবদ্ধ নয়- আয়ুর্বেদিক ওষুধ তৈরিতে এবং রুপ চর্চা ও চুলের যত্নে মেথি বেশি পরিমাণে ব্যবহার করা হয়ে থাকে বিভিন্ন কাজে এই মেথি ব্যবহার করা হচ্ছে। তাহলে আসুন আমরা জেনে নেয় কিভাবে মেথি প্রত্যাহিক জীবনে কাজে লাগতে পারি।

মেথির উপকারিতা তার পুষ্টিগুনে সেগুলো নিচে উল্লেখ করা হলো:-

এক চা-চামচ মেথির পুষ্টিগুণ রয়েছে:-

ক্রমিক গুনাগুন পরিমাপ
প্রোটিন ৩ গ্রাম
ফাইবার ৩ গ্রাম
ফ্যাট ১ গ্রাম
ক্যালরি ৩৫ ক্যালরি
লোহা ২০ শতাংশ
ম্যাঙ্গানিজ ৭ শতাংশ
ম্যাগনেসিয়াম ৫ শতাংশ

মেথিতে রয়েছে রক্তের গ্লুকোজ এর মাত্রা কমানোর বিষ্ময়কর গুন। মেথিকে আমরা দুইভাবে খেতে পারি । মধু, কালোজিরা, মেথির গুনাগুন প্রায় একই ধরনের হলেও কিছু পার্থক্য রয়েছে। আপনার শরীরের বা দেহে যদি কৃমি জনিত কোন সমস্যা থাকে তবে মেথি ব্যবহারে আপনার কৃমি সমস্যা দূর হয়ে যাবে । এক গ্লাস পানিতে ভিজিয়ে রেখে বা সকালে খালি পেটে মেথি চিবিয়ে খেলে শরীরের রোগ জীবাণু মারা যায় । মেথিতে রয়েছে ফাইবার, প্রোটিন, ভিটামিন সহ আরও অনেক গুন।

মেথির উপকারিতা :- 

১. মেথি রক্ত পরিষ্কার রাখতে সাহায্য করে ।
২. ডায়াবেটিস বা উচ্চ রক্তচাপ জনিত সমস্যায় মেথির উপকারিতা অনেক।
৩. রক্তে গ্লুকোজ বা চিনির মাত্রা কম করে।
৪. স্থুল বা মেদ ভুঁড়িয়ালা লোকদের ওজন কমানোর জন্য মেথি ব্যবহার করতে পারেন।
৫. যাদের একটু বৃষ্টিতে ভিজলেই জ্বর চলে আসে বা শীতের দিনে জ্বর আসে তারা মেথিকে মধুর সাথে মিশিয়ে খেতে      পারেন এতে করে আপনার মাঝে মাঝে জ্বর আসা বন্ধ হয়ে যাবে।
৬. আমরা এতোদিন জানতাম কালোজিরা খেলে মাতৃদুগ্ধ বাড়ে। কিন্তু মেথিও ঠিক কালোজিরা মতোন‌ই কাজ করে ।
৭. মেথি পুরুষ এবং নারী উভয়ের শরীরের বিভিন্ন ধরনের হরমোন বৃদ্ধি করতে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখে।
৮. আমাদের অনেকেরই চুল পড়া সমস্যা রয়েছে। আর আমাদের এই সমস্যা দূর করার জন্য মেথিকে বেটে বা পেষ্ট       বানিয়ে মাথায় ৭-১০ দিন ব্যবহার করলে আপনার চুল পড়ার সমস্যা দূর হয়ে যাবে ইনশাআল্লাহ।
৯. মেথি রুপচর্চায় ও ব্যবহার করা হয়। ব্রন বা মুখের মেছতা দূর করতে মেথি ব্যবহার করা হয়।
১০. মাথার খুশকির সমস্যায় যারা অনেক দিন ধরে ভুগছেন তারা মেথি ব্যবহার করতে পারেন।
১১. মেথি হজম শক্তি বৃদ্ধি করতে সাহায্য করে ।
১২. মেথি আমাদের পরিপাকতন্ত্রকে ভালো রাখতে বিশেষ ভূমিকা পালন করে। ফলে আমরা যা-খায় না কেনো তা            আমাদের জন্য ভূমিকা রাখে। আর এর জন্য আমাদের উচিত নিয়মিত মেথি ভেজানো পানি খেয়ে                            পরিপাকতন্ত্রকে সুস্থ রাখা।
১৩. মহিলাদের অনেকের মাসিকে ব্যাথা অনেক দিন ধরে থাকে বা অনুভূত হয়। এই সমস্যা দুর করার জন্য                     আপনার কোন বিশেষজ্ঞ ডাক্তারের কাছে যাওয়ার প্রয়োজন নেই। আপনি বাড়িতে বসে একটানা কয়েক দিন             সকালে মেথি ভেজানো পানি এবং মেথির সাথে মধু মিশিয়ে খান। আপনার সমস্যার সমাধান পেয়ে যাবেন                 আশা করি।
১৪. আমাদের অনেকের শরীরে অনেক ধরনের ব্যাথা থাকে বাথ ব্যাথা, পুরোনো আঘাতের ব্যাথা বা পড়ে যাওয়ার            ব্যাথা যা আমাদের অনেক দিন ধরে ভোগান্তির কারন। এসকল ব্যাথা দুর করার জন্য আমরা আমাদের ব্যাথা              স্থানে মেথিকে বেটে লাগাতে পারি। কয়েকদিন ব্যবহারে ব্যাথা অনেকটাই কমে যাবে।
১৫. ইদানিংকালে অনেকে নিজের রুপের লাবণ্য ও গ্লেমার ধরে রাখতে মেথির ব্যবহার করেন। মেথি চামড়াকে করে        তোলে কোমল ও আকর্ষনীয় যার ফলে যে কোন ব্যক্তিকে তার বয়সের তুলনায় অনেকটাই কম দেখায়।
১৬. আমাদের শরীরের মধ্যভাগে দুই পাশে দুইটি কিডনি রয়েছে। যা আমাদের শরীরের রক্ত ও পানির পরিমান ঠিক          রেখে অতিরিক্ত পানি বের করে দেয়। কিডনি আমাদের শরীরের অত্যাবশীকীয় উপাদান এর কোন বিকল্প নেই।          মেথি কিডনির ডায়ালাইসিস সিস্টেম কে ভালো রাখে।

মেথির উপকারিতা বলে শেষ করা যাবে না। আমরা মেথিকে পরিমান মতো ব্যবহার করবো। পরিমানের চেয়ে অতিরিক্ত ব্যবহার আমাদের জন্য সুফল এর বদলে বয়ে নিয়ে আসতে পারে কুফল। যা আমাদের কারো জন্যই ভালো হবে না। আমরা পরিবেশ সম্পর্কে সচেতন হবো, আমাদের এমন অনেক ওষুধি গুন সম্পূর্ন গাছ আছে। যা রক্ষা করা আমাদের সবার দায়িত্ব। ভালো থাকবেন, সুস্থ থাকবেন।